IELTS প্রবচন ০২

IELTS প্রবচন ০২ :
IELTS পরীক্ষার ওভারঅল প্রস্তুতি নিয়ে পর্ব ১ এ লিখেছিলাম. ওই লিখাটি হচ্ছে মূলত তাদের জন্য যারা ইংলিশ এর বেসিক মোটামুটি ভালো শুধু দরকার একটি ভালো নিৰ্দেশনা এবং প্র্যাক্টিসের.
আবার অনেকেই আছেন যাদের ইংলিশ এর লেভেল এততা ভালো না কিন্তু তারা IELTS এর প্রস্তুতি নিতে চান. সেক্ষেত্রে তাদের কিছু ব্যাকগ্রাউন্ড কাজ করতে হবে বেসিক ঠিক করার জন্য.
মনে রাখবেন, যে কোনো ভাষায় দক্ষতা লাভের মূল চাবিকাঠি হচ্ছে প্রাকটিস। আপনি যত বেশি প্রাকটিস করবেন, আপনার ভাষাগত দক্ষতা ততই বাড়বে।

সেই ছোটবেলা থেকেই আমাদের দেশে ইংলিশ পড়ানো হয়ে থাকে আবশ্যিক বিষয় হিসেবে। কিন্তু তারপরও দেখা যায় যে অনেকেরই ইংলিশের দক্ষতার তেমন উন্নতি হয় না।
বিশেষ করে ইংলিশের দুর্বলতার বিষয়টি বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে পড়াশোনার ক্ষেত্রে সবচাইতে বেশি অনুভূত হয় কারণ আমাদের দেশের বেশিরভাগ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পড়াশোনা করা হয় ইংলিশ মাধ্যমে।
ইংলিশের দক্ষতার বিষয়টি মূলত দুই দিক থেকে উন্নত করতে হয়। প্রথমত, গ্রামার সংক্রান্ত দক্ষতা উন্নত করতে হবে কারণ গ্রামার হচ্ছে যেকোনো ভাষার প্রাণ।

গ্রামারের বেসিক বিষয়গুলো যেমন tense, preposition, appropriate verbs ইত্যাদি বিষয়গুলো সম্পর্কে ধারণা ক্লিয়ার রাখতে হবে। গ্রামারের জন্য “A Passage to the English Language” বইটি দেখা যেতে পারে।
গ্রামারের পর শব্দগত দক্ষতা বৃদ্বির উপর নজর দিতে হবে। শব্দগত দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য অক্সফোর্ড ডিকশেনারী দেয়া commonly used ওয়ার্ডলিস্ট দেখা যেতে পারে।

এ দুটো দিক ভালো করে ঠিক করার পর, আমাদের নজর দিতে হবে ভাষাগত চারটি জিনিসের উপর – listening, speaking, reading and writing. Listening এর জন্য অনেকেই অনেক কিছু বলে থাকেন। আমি বলবো শোনার জন্য প্রথমে দেশি খবরগুলোর ইংলিশ ভার্সন শুনতে পারেন। এই ক্ষেত্রে বিটিভি এর ইংলিশ সংবাদ সবচেয়ে ভালো আজও।
আপনি আস্তে আস্তে যদি বিটিভি (BTV) এর খবরগুলো বুঝতে পারেন, তারপর আপনি বিবিসি (BBC) এর ইংলিশ ভার্সন শোনার প্রাকটিস করবেন।

তারপর আসে speaking এর বিষয়টি। শোনার সাথে সাথে বলারও অনুশীলন করতে হবে। এই ক্ষেত্রে আপনি চাইলে আপনার কোনো ফ্রেন্ড কিংবা পার্টনার কিংবা যে কারো সাথে প্রতিদিন অন্তত ১ ঘন্টা যে কোনো কিছু নিয়ে ইংলিশে কথা বলার চেষ্টা করতে পারেন। হা, ভুল হবেই এটাই স্বাভাবিক। মানুষ ভুল করে – এটা মানুষ হিসেবে সবার জন্য সত্য। কিন্তু মানুষ আবার এই ভুল থেকেই শিখে -তাও সত্য। তাই, আস্তে আস্তে চেষ্টা করুন, আলো আসবেই। ইংলিশ একটি আন্তর্জার্তিক ভাষা। তাই আপনি ব্রিটিশ না মার্কিন উচ্চারণ করছেন সেটা ব্যাপার না, আপনি ঠিক করে বলতে পারাটাই হচ্ছে বড় ব্যাপার।

তারপর reading এর জন্য আপনি অনলাইন থেকে দেশের যে কোনো দৈনিক ইংলিশ পত্রিকা পড়তে পারেন। আমি সেই ছোট বেলায় যখন উচ্চারণ করে পড়তাম তখন আমার ক্লাস ৩ এর বার্ষিক পরীক্ষার পর আমার বোনের HSC ইংলিশ এর বই এর অর্ধেক উচ্চারণ করে করে পরে শেষ করেছিলাম। ক্লাস ৪ থাকাকালীন সময়ই আমি ডেইলি অবজার্ভার (Daily Observer) পত্রিকা পড়তাম আর ডিকশেনারী দেখে অর্থ বের করার চেষ্টা করতাম। এসব কিছু বলার একটাই কারণ, যে আমাদের চেষ্টা করতে হবে।

ইংলিশ পত্রিকা পড়ার পর, ডিকশেনারী দেখে অজানা শব্দের অর্থ খুঁজে বের করুন এবং নোটস করে রাখুন।ঢাবি তে ভর্তির আগে আমি ইকোনোমিস্ট ম্যাগাজিনে (Economist Magazine) পড়ে এই রকম নোটস করে রাখতাম। তারপর সবশেষে আসে writing এর পালা। লিখতে গেলে আমাদের সবারই অনেক চিন্তা আসে। কিন্তু আমি বলবো চিন্তা না করে যাই মনে আসে তাকে ইংলিশে লিখে ফেলবেন। ভুল হবেই। এই ভুলটাকে জানার জন্য আপনাকে একজন মেন্টর ঠিক করতে হবে। যার কাজ হবে, আপনার লিখাগুলোর কারেকশন করে দেয়া। তাহলেই আপনি শিখতে পারবেন।

আসলে যেকোনো ভাষায় ভালো করার জন্য প্র্যাক্টিসের কোনো বিকল্প নেই। তাই সময় দিতে হবে, অনুশীলন করতে হবে।
এই রকমভাবে কমপক্ষে ২ মাস অনুশীলন করার পর পর্ব ১ দেয়া স্ট্রাটেজি অনুসরণ করে প্রথমে Khan’s IELTS সিরিজ থেকে প্রশ্নগুলো সমাধানের কৌশল শিখতে হবে. তারপর প্রাকটিস করতে হবে Cambridge IELTS সিরিজ এর বইগুলো থেকে কমপক্ষে আরো ১-২ মাস. পরিশেষে, এইটাই বলবো নিজের উপর বিশ্বাস রেখে চেষ্টা করুন, সময় লাগবে, মাঝে মাঝে খারাপও লাগবে কিন্তু সাফল্য একদিন আসবেই। আগামী দিনের পর্বগুলোতে IELTS পরীক্ষার প্রতিটি সেক্শনের প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা করা হবে।

ভালো থাকুন, নিরাপদে থাকুন.
আর অন্যায়কে সর্বদা না বলুন. একে অন্যের সাহায্য করুন.

নূর-আল-আহাদ
বিবিএ (ইউনিভার্সিটি অফ ঢাকা) ১৪ তম ব্যাচ
এমবিএ (ইউনিভার্সিটি পুত্রা মালয়েশিয়া)
ফিনান্সিয়াল ইঞ্জিনিয়ারিং গবেষক (জাপান)
সার্টিফাইড প্রফেশনাল ফরেনসিক একাউন্টেন্ট (চলমান)
(Acquiring knowledge does not have a full-stop, rather it always has comma – Ahad)

5/5 (4)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *