IELTS প্রবচন ০১

IELTS প্রবচন ০১ :
বিদেশে পড়াশোনার জন্য আমাদের মতো নন-ইংলিশ স্পিকিং দেশগুলোর ছাত্র-ছাত্রীদের প্রচুর চেষ্টা করতে হয়। এসকল চেষ্টার মধ্যে একটি অন্যতম চেষ্টা হচ্ছে এত বছর ইংলিশ পড়ার পরও আমাদের অন্য দেশের প্রতিষ্ঠানগুলোকে ফিস বাবদ টাকা দিয়ে আমাদের ইংলিশের স্কিল আছে তার সার্টিফিকেশন নিতে হয়। যদিও আমি এই পদ্ধতির সম্পূর্ণ পরিপন্থি কিন্তু বর্তমান অবস্থায় আমাদের এই পদ্ধতিই অনুসরণ করতে হচ্ছে।

আমি নিজেও ঢাবিতে পড়ার সময় আমার বিবিএ ফাইনাল পরীক্ষার সময় IELTS পরীক্ষা দিয়ে ছিলাম এবং ৭ পেয়েছিলাম । সর্বশেষ ৩ বছর আগে যখন আবার পরীক্ষা দিলাম তখন ৮ পেয়েছিলাম। দুবারই বলতে গেলে আমি কিছু না পড়েই পরীক্ষা দিয়েছি। গতবছর আবার নিজেকে পরীক্ষার জন্য TOEIC পরীক্ষা দিলাম এখানে এবং ৯২৫ পেয়ে টপ ১% এর মধ্যে আসলাম কারণ TOEIC এর টোটাল স্কোর হচ্ছে ৯৯০. আর listening অংশে রয়েছে আমার পারফেক্ট স্কোর.
বাইরে পড়তে যাবার জন্য ইংলিশের অনেক রকম পরীক্ষা রয়েছে। IELTS তার মধ্যে অন্যতম। IELTS পরীক্ষা নিয়ে অনেকের মাঝেই প্রবল চিন্তা দেখা যায় বিশেষ করে আমাদের চারপাশে এই পরীক্ষা নিয়ে ব্যাপক রকমের কথা প্রচলিত আছে।
IELTS পরীক্ষা আসলে অন্য যে কোনো ইংলিশ পরীক্ষার মতোই একটু পরীক্ষা। এটি মূলত একটি টাইম বাউন্ড (time bound) পরীক্ষা।

IELTS পরীক্ষার প্রস্তুতি মোটামুটি আমাদের স্কুল-কলেজ লেভেলের ইংলিশেই হয়ে যায় বিশেষ করে নতুন করে ভোকাবুলারি শিখার তেমন দরকার পরে না। আবার গ্রামার এর বিষয়গুলো মোটামুটি ক্লিয়ার থাকলেই মোটামুটি ভালো করা যায়।
তবে আমার কাছে সবসময়ই মনে হয় পরীক্ষাটি সহজ হলেও এই পরীক্ষা নিয়ে তেমন কোনো ভালো নির্দেশনা না পাবার কারণেই স্কোর আশানরুপ হয় না।

তাই IELTS পরীক্ষার জন্য বেশ কিছু স্ট্রাটেজি অনুসরণ করতে হয় কারণ অল্প সময়ে বেশি স্কোর লাভ তখনই সম্ভব হয় যখন আপনি যথাযতভাবে আপনার জ্ঞান এবং স্ট্রাটেজির মধ্যে বন্ধুত্ব সৃষ্টি করতে পারবেন। এই জন্য প্র্যাক্টিসের বিকল্প নেই।
IELTS এর জন্য মূলত Cambridge এর বইগুলোই বেস্ট কারণ রিয়েল এক্সাম এর পূর্ণ স্বাদ কেবল এই বইগুলো থেকে পাওয়া যায়। কিন্তু স্ট্রাটেজি নিয়ে জানতে হলে, আরো বেশ কিছু বই পড়ার দরকার পরে। বাজারে অনেক ধরণের বই থাকলেও আমার কাছে খান’স IELTS সিরিজের এর বইগুলোকে বেশ ভালো মনে হয়েছে। বিশেষ করে বইগুলোতে বর্ণিত স্ট্রাটেজি যদি ফলো করা যায়, তাহলে স্কোর বাড়বেই।

তাহলে মূলত IELTS এর প্রস্তুতি হবে তিন ধাপে। প্রথম ধাপে, IELTS এর প্রতিটি সেকশন এবং প্রত্যেক ধরণের প্রশ্ন সম্পর্কে জানতে হবে। দ্বিতীয় ধাপে, প্রত্যেক ধরণের প্রশ্ন সমাধানের স্ট্রাটেজি জানতে হবে Khan’s IELTS Series এর বই গুলো থেকে।
আর সর্বশেষ ধাপে, Cambridge IELTS এর বইগুলো থেকে প্রাকটিস করতে হবে।
এটি ছিল IELTS এর মোটামুটি প্রস্তুতি নিয়ে। আগামী দিনের পর্বগুলোতে IELTS পরীক্ষার প্রতিটি সেক্শনের প্রস্তুতি নিয়ে আলোচনা করা হবে।
ভালো থাকুন, নিরাপদে থাকুন.
আর অন্যায়কে সর্বদা না বলুন. একে অন্যের সাহায্য করুন.

নূর-আল-আহাদ
বিবিএ (ইউনিভার্সিটি অফ ঢাকা) ১৪ তম ব্যাচ
এমবিএ (ইউনিভার্সিটি পুত্রা মালয়েশিয়া)
ফিনান্সিয়াল ইঞ্জিনিয়ারিং গবেষক (জাপান)
সার্টিফাইড প্রফেশনাল ফরেনসিক একাউন্টেন্ট (চলমান)
(Acquiring knowledge does not have a full-stop, rather it always has comma – Ahad)

5/5 (2)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *